Special Notice regarding Enrollment Written Exam of 19-12-2020

Special Notice regarding Enrollment Written Exam of 19-12-2020

Share this post

Comments (9)

  • Abul kalam Reply

    It’s not fair, coz we were not prepared before about new exam method. Next examinees get benefit coz they are concerned about new method. So, we r in trouble…

    December 24, 2020 at 8:03 pm
  • Sabuj Reply

    স্যার , সবার পরিক্ষানিন

    December 24, 2020 at 10:04 pm
  • অর্ণব তালুকদার Reply

    এইটা আপনাদের কেমন বৈষম্য মূলক আচরণ..?
    আমরা কি দোষ করেছি..? এক পরীক্ষায় দুটো প্রশ্ন কেন..?

    যারা পরের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে এরা আগের পরীক্ষার প্রশ্নের ধরণ অনুযায়ী প্রিপারেশন নিবার সুযোগ পাচ্ছে,
    এরা আমাদের চেয়ে পড়াশোনা করার এক্সট্রা সময় পাচ্ছে,
    আমাদের মেনটাল প্রেশারে রেখে পরীক্ষা নিয়েছেন, এদের বেলায় এরা সম্পুর্ণ টেনশন ফ্রি।

    আমাদের প্রশ্ন নিয়ে কিছুটা বিতর্ক থাকায় এদের প্রশ্নের ধরণটাও সুবিধে মূলক করা আপনাদের চিন্তাধারায় থাকবে।

    আমরাও পুনরায় পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে ইচ্ছুক।
    দয়া করে নিজেদের কিছু সুবিধার কথা চিন্তা করে এই পবিত্র সংঘটনটাকে আর বিতর্কিত করবেন না।
    আপনাদের এই রকম পক্ষপাতমুলক সিদ্ধান্ত এর কারণেই আজকের এই সংঘাত,প্রতিবাদ। এই দায় আপনাদের।
    হ্যা, বলতে বাধ্য হচ্ছি আপনারা ব্যর্থ হয়েছেন।

    পরিশেষে এই একটাই মিনতি, আমরা কখনোই পরীক্ষা মওকুফ বা বাতিল চাইনি। নিজ যোগ্যতাবলে আইনজীবী হওয়ার স্বপ্ন দেখেছি। তাই যোগ্যতা প্রমাণ করার শেষ সুযোগটুকু থেকে ক্ষমতাবলে আমাদেরকে বঞ্চিত করবেন না।

    December 24, 2020 at 10:22 pm
  • MamunPatwary Reply

    যারা পরীক্ষা দিয়েছি তারা বৈষম্য স্বীকা।

    December 24, 2020 at 10:54 pm
  • মেহেদি হাসান Reply

    স্যার দয়া করে যদি আমাদের সবার পরিক্ষার সুযোগ দিতেন তাহলে চিরকৃতজ্ঞ থাকিতাম,
    আমরা তো বয়কট করি নাই। কোন আনদোলনে অংশ গ্রহণ করি নাই।বার কাউন্সিল কে মেনে তাদের সিদ্ধান্ত মেনে পরিক্ষা দিয়েছি,
    আমাদের কি আরেকটা সুযোগ দেয়া যায় না।

    December 24, 2020 at 11:47 pm
  • ain joddha Reply

    স্যার তাহলে যারা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে পরীক্ষা দিলো তারা এখন ভিকটিম হলো আর যারা ভাংচুর করলো তারা সুবিধা পেলো। যারা ভাংচুর করছে তারা শতকরা ৯০% পরীক্ষার্থী ইচ্ছেকৃতভাবে পরীক্ষা বয়কট করেছ। এসব সারা দেশবাসী ভিডিওতে দেখেছে।আর তাছাড়া এই ধরনের সিদ্ধান্তে ইকুয়ালিটি কিভাবে নির্ধারন হলো বুঝতে পারলাম না। স্যার দয়া করে বিতর্কিত সিদ্ধান্ত নিয়ে আমাদের জীবনকে ধ্বংস করবেন না। আশা করি বিষয়টা পুনঃ বিবেচনা করবেন।

    December 25, 2020 at 2:35 am
  • Sabuj Reply

    বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের এরূপ সিদ্ধান্ত আমাদের স্বপ্ন পূরণে হুমকিস্বরূপ , গতানুগতিক প্রশ্ন অনুযায়ী আমরা যারা পড়াশােনা করেছি তারা গত 19 12 2020 তারিখের প্রশ্নে হতাশ হয়েছি এ ধরনের প্রশ্নের জন্য আমরা একদমই প্রস্তুত ছিলাম না সুতরাং এই প্রশ্নে আমরা সন্তোষজনকভাবে লিখতে পারিনাই তার প্রধান কারণ হচ্ছে প্রশ্ন প্যাটার্ন চেঞ্জ । একটি পরীক্ষা দুইটি প্রশ্ন হওয়া উচিত কিনা সেটা বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের ভালাে করে বিবেচনা করা উচিত , যারা নতুন করে পরীক্ষা দিবে তারা নতুন প্রশ্নের প্যাটার্ন অনুযায়ী পড়াশােনা করার সুযােগ পাবে এবং নতুন প্রশ্ন পদ্ধতি সম্পর্কে তারা জ্ঞাত থাকবে এবং তারা সেভাবেই পড়ার সুযােগ পাবে , সুতরাং তাদের পরীক্ষা ভালাে হওয়াটাই স্বাভাবিক কিন্তু আমাদের কি হবে … ?? যারা বাইরে থেকে খাতা লিখে এনে জমা দিয়েছে , বই খাতা দেখে যারা পরীক্ষা দিয়েছে তাদের উত্তরপত্র জমা নেওয়া হয়েছে , এখানে তাদের তাে নতুন করে পরীক্ষা দিয়াে লাগছেনা এক্ষেত্রে তারা এসব থেকে বড় সুবিধা ভােগ করলাে অথচ আমরা যারা কষ্ট করে পরীক্ষা দিয়েছি তারা সবথেকে বেশি দুর্ভোগের শিকার হলাম । নতুন করে যদি পরীক্ষা নেয়া হয় তাহলে সবাইকেই পরীক্ষা দেওয়ার সুযােগ করে দিতে হবে তা না হলে আমাদের প্রতি অবিচার করা হবে । বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের প্রতি আমাদের আকুল আবেদন এ ধরনের স্পর্শ কাতর বিষয়ে কোনাে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে সকলের কথা যেন একবার চিন্তা করে ।

    December 25, 2020 at 12:43 pm
  • M. M. Rahman Reply

    Equity, Equality, Justice all dead. Shame on you. You’re disgrace.

    December 27, 2020 at 8:57 pm
  • M. M. Rahman Reply

    You’re a laughing stock to the global arena of law. hahaha

    December 28, 2020 at 1:03 pm

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *